Meftahul Amin
Meftahul Amin
Digital Marketer Product Designer
Meftahul Amin

Blog

নিজ এলাকার কাস্টমারদের কাছে বিজনেস করার কৌশল

নিজ এলাকার কাস্টমারদের কাছে বিজনেস করার কৌশল

কোভিড ১৯ এর এই সংকটময় সময়ে ইকমার্সের লোকাল মার্কেটিং কৌশলে কিছু দৃশ্যমান পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। এই সময়ে লোকাল মার্কেটিং কৌশলে গুরুত্ব দেওয়া সব থেকে বেশি প্রয়োজন। কিন্তু আমি লোকাল মার্কেটিং নিয়ে কথা কেন বলছি? করোনাকালীন সময়ে বৈশ্বিক ব্যবসার পরিস্থিতিতে যে পরিবর্তন ঘটছে তার সাথে মানিয়ে নিতে হলে সবার আগে মানিয়ে নিতে হবে লোকাল মার্কেটিং এর কৌশলগত পরিবর্তনের সাথে। কেন এবং কীভাবে লোকাল এরিয়াতে বিজনেসটিকে মানিয়ে নিতে সক্ষম হবেন?

ইকমার্সের লোকাল মার্কেটিং কী?

এটি মার্কেটিং কৌশল এর একটি সমন্বিত প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে আপনি লোকাল কাস্টমারদের নিজের দিকে আকৃষ্ট করতে পারেন। ঘরে থাকাকালীন সময়ে মানুষ সব থেকে বেশি খোঁজে তার আশেপাশের বিজনেস হাব গুলোকে।এ সময় মানুষ ঘর থেকে বের হতে পারছে না তাই তার আশেপাশের রিটেলগুলো তাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।

কেন লোকাল রিটেলশপ গুরুত্বপূর্ণ?

বাইরে গন জমায়েত নিষিদ্ধ, শপিং মল, সুপারশপ সহ বড় বড় সব রিটেল প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ। এই সময়ে মানুষ বাসা থেকে কাজ করছে। মেনে চলছে সামাজিক দূরত্ব। ফলে, যখনই তাদের কিছু কেনাকাটা প্রয়োজন পড়ছে তারা লোকাল মার্কেটের যে রিটেল শপগুলো রয়েছে কেনাকাটার জন্য তাদেরকে প্রাধান্য দিচ্ছে সবার আগে।

আপনি নিজেও খেয়াল করলে দেখবেন, আপনি এই করোনা কালীন সময়ে আপনার আশেপাশের সেই সকল রিটেল শপগুলো কে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। যেগুলো থেকে এর আগে কখনো কেনাকাটা করেননি। শুধুমাত্র আপনি নন বর্তমান সময়ে সবাই একই উপায়ে কেনাকাটা করছে। লোকাল মার্কেটিং এর গুরুত্ব এখানেই। আপনি কি ধরনের প্রোডাক্ট বিক্রি করছেন সেগুলো যদি আপনার আশেপাশের মানুষ জানতে পারে তবে তাদের প্রয়োজনে আপনাকে খুজে নেবে। লোকাল কাস্টমার যেন আপনাকে খুব সহজে খুঁজে পায় সে ব্যবস্থা করে দিতে হবে।

কীভাবে আপনার বিজনেসকে লোকালাইজড করবেন?

আপনি কী ধরনের প্রোডাক্ট নিয়ে বিজনেস করছেন সেটির তথ্য আপনাদের কাস্টমার কাস্টমার কে প্রতিনিয়ত দেয়ার মাধ্যম দিয়ে আপডেট থাকতে হবে? সেজন্য অনলাইনে আপনার বিজনেস এর সমস্ত তথ্য করতে হবে হালনাগাদ। জেনে নিন কীভাবে সেটা করবেন।

বিজনেস ওয়েবসাইট

অনলাইন বিজনেস এর কথা যখনই আসে প্রথম যে কথাটি মাথায় আসে সেটি হচ্ছে বিজনেস ওয়েবসাইট।একটি ওয়েবসাইট বিজনেস এর যাবতীয় তথ্যের উৎস। তাই প্রথমেই আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে আপনার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে।

ওয়েবসাইটে স্টোর ম্যাপ যোগ করুন

আপনার ওয়েবসাইটে যখন একটি ম্যাপ যুক্ত থাকবে তখন কাস্টমার খুব সহজেই বুঝতে পারবে যে তার আশেপাশে আপনার বিজনেসের অবস্থান ঠিক কোথায়? এটি আপনার রিটেল শপকে খুঁজে পাওয়ার জন্য খুব সহজ এবং দ্রুততম পদ্ধতি। কাস্টমার চাইলে ম্যাপ ফলো করে আপনার শপে সরাসরি পৌঁছে যেতে পারে। বিজনেস ওয়েবসাইটটিকে লোকালাইজড করার জন্য যে কৌশলটি সবথেকে বেশি কার্যকরী সেটা হচ্ছে নেম ড্রপিং। অনেকেই হয়তো নেম ড্রপিং টার্মটির সাথে পরিচিত নন।

একটি উদাহরণ দিয়ে বলার চেষ্টা করি, মনে করুন আপনার শপ স্থানীয় স্টেডিয়ামের অপজিটে।

সে ক্ষেত্রে আপনি যখন ম্যাপে আপনার শপের নাম যুক্ত করবেন তখন তাদের সেটি খুঁজে পাওয়ার সুবিধার্থে আপনি বলে দেবেন সেটির আশেপাশে কোন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার নাম যা সহজেই খুজে পাওয়া যায়।এক্ষেত্রে বলবেন, শপ X স্টেডিয়ামের অপজিটের বিল্ডিং এর দ্বিতীয় তলায় যেহেতু স্টেডিয়ামের মতো স্থাপনা অনেকের কাছেই পরিচিত তাই খুব সহজেই মানুষ সেটি খুঁজে পাবে এবং সাথে খুঁজে পাবে আপনার শপটি।

অনলাইন লিস্টিং এবং রিভিউ

বর্তমানে মানুষ কিছু কেনাকাটা করলেই প্রথমেই গুগোল করে। তারা আশেপাশের কিছু খুঁজে পেতে লিখে, near me মনে করুন, কেউ একটি হেয়ার সেলুন খোঁজ করছে। সে গুগলে লিখবে হেয়ার সেলুন near me এটা লিখলে তার আশেপাশের সমস্ত হেয়ার সেলুন এর ঠিকানা ম্যাপে ভেসে উঠবে। তার সব থেকে নিকটতম প্রতিষ্ঠানটি থাকবে সবার উপরে। সেখানে দোকানের ঠিকানা, ফোন নাম্বার, কতক্ষণ খোলা থাকে সবকিছু স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকে। সাথে থাকে কাস্টমার রিভিউ। তাই লোকাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আপনার অনলাইন লিস্টিং গুলো নিয়মিত পরীক্ষা করবেন।

ফিজিক্যাল লোকেশন

যদিও লোকাল মার্কেটিং কৌশল পরিবর্তিত হচ্ছে তবু এটি সম্পূর্ণভাবে পরিবর্তন সাধিত এখনো হয়নি। একটি প্রোডাক্ট এর প্রয়োজন হলে আমরা মনে মনে সেটি খুঁজতে। আশেপাশের দোকানগুলোতে ওর সামনে দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় আমরা লক্ষ্য করি সেই জিনিসটি সেখানে আছে কিনা। অনেক সময় সেটি আমরা পায় আবার কখনও কখনও আমরা পায় না। আপনার যদি একটি ফিজিক্যাল শপ থাকে তাহলে আপনি সেটি অনলাইনে লিস্টিং করে রাখতে পারেন। আপনার দোকানে কি ধরনের প্রোডাক্ট বিক্রি হয় তার একটু ধারণা সেখান থেকে আসতে পারেন। এতে কাস্টমারদের পক্ষে খুব নির্দিষ্টভাবে আপনাকে খুঁজে পাওয়া সহজ হয়ে যাবে। যেহেতু অনলাইনে ম্যাপ সুবিধা রয়েছে ফলে আপনার বিজনেস লোকেশন এর কাস্টমার কিভাবে যেতে পারে সে বিষয়ে তার একটা পরিষ্কার ধারণা পেয়ে যাবেন। সোশ্যাল মিডিয়া,ওয়েবসাইট গুগল লিস্টিং এ আপনার ঠিকানা উল্লেখ থাকলে কাস্টমারদের কাছে আপনার দৃশ্যমানতা বেড়ে যাবে।

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম

যেহেতু মানুষ এখন সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশি পরিমাণ সময় দিচ্ছে। এতে করে তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা আপনার জন্য সহজ হয়ে যাবে।

সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার দৃশ্যমানতা থাকলেই আপনার বেচাকেনা হবে বিষয়টি এমন নয়। কাস্টমারদের কে যুক্ত করে রাখা তাদের সাথে যোগাযোগ এবং মার্কেটিং জন্য একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান সময়ে কাস্টমার সাপোর্ট এর ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার প্রচুর পরিমাণে হচ্ছে।

ফলো এন্ড সাবস্ক্রাইব

সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি পেইজ খোলার পরপরই আপনার পরিচিতদের সেটাতে লাইক এবং ফলো করার জন্য ইনভাইট করবেন।

সবাইকে একত্রিত করা

আপনি একটি ফেসবুক গ্রুপ খুলতে পারেন যেখানে কাস্টমাররা যুক্ত হবে এবং তারা আপনার প্রোডাক্ট কিংবা তাদের আকাঙ্ক্ষা নিয়ে কথা বলতে পারে।

সাপোর্ট, শেয়ার, প্রমোট

সহযোগিতা করলে সহযোগিতা পাবেন। কাস্টমারদের যেকোনো ধরনের জিজ্ঞাসা সমস্যার সমাধানে সহযোগিতা করুন। এতে আপনার সম্পর্কে তাদের ইতিবাচক ধারণা জন্ম নিবে। লোকাল বিজনেস রিলেটেড যে কোন ধরনের তথ্য ব্যক্তিগত পেজে অথবা পরিচিত জনদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। এতে অনেক মানুষ তথ্যটি দেখতে পাবে এবং আপনার সম্পর্কে জানবে। শুধু নিজের বিজনেস নয় অন্যর বিজনেস কেউ প্রমোট করুন। এতে করে অন্যরাও আপনার বিজনেসকে প্রোমোট করার জন্য আগ্রহী হবে এবং একে অপরের সহযোগিতার মাধ্যমে আপনার লোকাল বিজনেসটি ধীরে ধীরে বেড়ে উঠবে।

৮০/২০ রুলস

লোকাল মার্কেটিং এ ৮০ ভাগ সময়ই চেষ্টা করবেন কাস্টমার কনভারসেশন বাড়ানোর দিকে মনযোগী হতে। মানুষ যত বেশি কথা বলবে তারা ততো বেশি এনগেজ থাকবে। বিজনেস এর বাইরের বিভিন্ন ধরনের তথ্য নিয়মিতভাবে প্রদান করুন।

২০% সময় খুব কৌশলে আপনি আপনার প্রোডাক্ট বেচাকেনা নিয়ে কথা সম্পর্কে বলবেন। এতে করে কাস্টমার আপনাকে একঘেয়ে বা বিরক্তকর মনে করবে না।

পরিশেষে,

ইকমার্সের লোকাল মার্কেটিং কৌশল অন্যান্য মার্কেটিং এর থেকে ভিন্ন কিছু নয়। পার্থক্য শুধু আপনি আপনার আশেপাশের লোকাল কাস্টমারদের দিকে বেশি পরিমাণে প্রাধান্য দিচ্ছেন। বিশ্ব পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন, মার্কেটিং এর মূল উদ্দেশ্যই কাস্টমারদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করা।

আপনি যদি লোকাল কমিউনিটির সাথে শক্ত একটি সম্পর্কের জায়গা তৈরি করতে পারেন। তবে আপনার বিজনেস নিঃসন্দেহে বেড়ে উঠবে।

Add Comment